Tuesday, November 13, 2018

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348
sonardesh24.com

জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় ‘কলম যোদ্ধা’ হবে সাংবাদিকরা

ঢাকাঃসোনারদেশ২৪ডটকমঃ

sonardesh24.comজঙ্গিবাদবিরোধী যেকোন পদক্ষেপে সরকারের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে একসঙ্গে কাজ করবে সাংবাদিকরা।

শনিবার বেলা ১১টায় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ডাকে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সাংবাদিক নেতারা এসব কথা বলেন।

“জেগে ওঠো দেশবাসী, রুখে দাও-জঙ্গিবাদ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে এই প্রতিবাদী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারোয়ার বলেন, ‘সাংবাদিকরা শুধু কলম সৈনিক নয়, সাংবাদিকরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত মাঠের সৈনিকও। অতীতে সকল আন্দোলনে সাংবাদিকরা মাঠে থেকেছে, মুক্তিযুদ্ধে মাঠে থেকেছে, সুতরাং আমাদের  এই সংগ্রাম, আন্দোলনে, সম্পৃক্ততা-এটা ঐতিহাসিক সত্য। ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু যে ভাষণ দিয়েছিলেন, তা পৃথিবীর ইতিহাসে সংক্ষিপ্ত মহাকাব্য।’

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘আমাকে দাবাইয়া রাখতে পারবানা’। আমরা আবারও বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক কথাটা উচ্চারন করে বলতে চাই, আমাদের তোমরা ‘অপশক্তি’ দাবাইয়া রাখতে পারবানা। কারণ আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নবনির্বাচিত সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘ইসলাম ধর্মে সহিংসতার কোন ঠাঁই নাই, ইসলাম শান্তির ধর্ম। আজকে যারা ইসলামের নামে সহিংসতা করছে তারা প্রকৃতপক্ষে ইসলামকে কলঙ্কিত করছে। ধর্মের নামে ধর্মের অপব্যবহারের বিরুদ্ধে প্রকৃত ইসলামের অনুসারী মুসলিম সমাজ ও অসাম্প্রদায়িক নাগরিক সমাজকে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও নিউজ টুডে’র সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদ নিয়ে যে সংকটের মোকাবিলা করছে, এখানে কোনো রাজনীতি নেই। এখানে পুরো জাতি ঐক্যবদ্ধ। এই সন্ত্রাসবাদ রুখতে হবে। আজকে সাংবাদিকরা রাস্তায় নেমে এসেছে। সাংবাদিকদের সন্ত্রাসের ব্যাপারে কোন বিভাজন নেই।’

জাতীয় প্রেসক্লাবের বর্তমান সভাপতি শফিকুর রহমান বলেন, ‘ইসলামের নামে যারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে তারা মুসলমান না। তাদেরকে রুখে দিতে হবে।’

একাত্তরের মানবতা বিরোধী অপরাধে শাস্তি পাওয়াদের স্বজনদের বিএনপির কমিটিতে স্থান দেয়ায় এই সাংবাদিক নেতা বিএনপির তীব্র সমালোচনাও করেন।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব ওমর ফারুক বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কাছে যারা রাজনৈতিক ভাবে পরাজিত হয়েছে, যারা দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়, আজকে তারাই জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করছে। এদেশের জঙ্গিবাদ কোন আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের অংশ নয়।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ বলেন, ‘জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন রুখে দাঁড়িয়েছে এবং সব সময় রুখে দাঁড়াবেও।’

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক মহাসচিব আব্দুল জলিল ভূঁইয়া বলেন, ‘আমরা যদি বাঙালি সংস্কৃতিকে ধারণ করে এগোতে পারি তাহলে জঙ্গিবাদ মোকাবিলা সম্ভব। তার সাথে সাথে আইনগত ব্যবস্থাও নিতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এদেশে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির কোন স্থান ছিলো না। পঁচাত্তর সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করার পর এদশে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বীজ বপন করেছে জিয়াউর রহমান। আজকের এই দিনে আমরা জিয়াউর রহমানকে ধিক্কার দিতে চাই। গোলাম আজমের মত মানবতাবিরোধী অপরাধীকে বাংলাদেশে এনে নাগরিকত্ব দিয়েছিলেন তিনিই। তখন থেকেই বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের যাত্রা শুরু হয়েছে। শুধু তাই নয়, গোলাম আজমের নাগরিকত্বের জন্য সিগনেচার ক্যাম্পেইন করা হয়েছিলো এবং তাতে অনেক সাংবাদিকও যুক্ত ছিলেন।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, ‘আমরা রাজপথে নেমেছি। কারণ আমরা এদেশের, এই জাতির-ই সন্তান। সন্ত্রাস মোকাবিলায় আমরা শুধু কলম চালাবো না, প্রয়োজনে আমরা যোদ্ধা হিসেবে যুদ্ধও করবো।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কুদ্দুস আফ্রাদ বলেন, ‘এ দেশ থেকে জামায়াত শিবিরকে নিষিদ্ধ করতে পারলে, তাদের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারলে জঙ্গিবাদ অনেকাংশে কমে যাবে। এদের অর্থনৈতিক ভাবে যারা পৃষ্ঠাপোষকতা দিচ্ছে তাদের চিহ্নিত করতে হবে। বাংলাদেশের সাংবাদিকরা মাঠে আছে, পত্রপত্রিকা, টেলিভিশন, তারা সব সময় জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুন্না জামাল বলেন, ‘জঙ্গিবাদের ভয়াল থাবায় গোটা জাতি আজ শঙ্কিত।’ তিনি সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অমিয় ঘটক পুলক বলেন, ‘জঙ্গিরা সাধারণ মানুষ, ব্লগার ও বিদেশি হত্যা করছে। কারণ তাদের উদ্দেশ্য দিন দিন সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া আর বাংলাদেশকে পিছিয়ে দেয়া।’

মানববন্ধনের শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দেয়া হয়। সেই সঙ্গে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনও করা হয়।

মানববন্ধনের সমাপনী ঘোষণা করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম চৌধুরী। ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী এ প্রতিবাদী মানববন্ধনের সঞ্চালনা করেন।

Check Also

sonardesh24.com

সু চি’র ‘অ্যাম্বাসেডর অব কনসায়েন্স’ ফিরিয়ে নিল অ্যামনেস্টি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪: মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি’কে ৯ বছর আগে দেয়া সর্বোচ্চ সম্মানসূচক ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com