Thursday, June 21, 2018

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348
sonardesh24.com

বৈধ কাগজপত্র নেই সাড়ে ১৩ মণ স্বর্ণের

সোনারদেশ২৪ রিপোর্টঃ

sonardesh24.comরেইনট্রি ধর্ষণকাণ্ডের পর আলোচনায় আসা আপন জুয়েলার্সের পাঁচটি বিক্রয় কেন্দ্র থেকে শুল্ক গোয়েন্দাদের জব্দ করা সাড়ে ১৩ মণ সোনা ও হীরার কোনও বৈধ কাগজপত্র নেই। যার দাম প্রায় আড়াইশো কোটি টাকা।

ধর্ষণকাণ্ডের প্রধান আসামি শাফাত আহমেদের বাবা ও আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক দিলদার আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদের পর শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তর এ তথ্য জানিয়েছে।

বুধবার সোনা ও হীরা সংগ্রহের স্বচ্ছতা নিয়ে দিলদার আহমেদ, তার দুই ভাই গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদকে ৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেন শুল্ক গোয়েন্দারা।এরপর সন্ধ্যায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

রাজধানীর কাকরাইলে সংস্থাটির সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আপন জুয়েলার্সের মালিকরা দাবি করেছেন তাদের স্টোরে কিছু কাগজপত্র থাকতে পারে যা তাদের বৈধতা নিশ্চিত করবে। তারা সে কাগজপত্র জমা দিতে সময় চেয়েছেন। আমরা তাদের আগামী ২৩ মে পর্যন্ত সময় দিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘আপন জুয়েলার্সের মালিকরা জিজ্ঞাসাবাদে দাবি করেছেন, জব্দ স্বর্ণের মধ্যে কয়েকজন গ্রাহকের স্বর্ণ রয়েছে যা তারা রিপেয়ার করতে দিয়েছিল। আমরা বলেছি সেসব গ্রাহকদের স্বশরীরে উপস্থিতি ও স্বর্ণের কাগজপত্র যাচাইয়ের পর আমাদের সন্তুষ্টি সাপেক্ষে ২২ মে সেগুলো আইনানুগভাবে ফেরত দেওয়া হবে।’

স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের আতঙ্কের কিছু নেই জানিয়ে মহাপরিচালক বলেন, ‘বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশন (বাজস) নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আমাদের একাধিকবার বৈঠক হয়েছে। আমরা তাদের আশ্বস্ত করতে চাই এখানে আতঙ্কের কোনও কিছু নেই। আমরা একেবারেই সুনির্দিষ্ট তথ্য ও প্রাথমিক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে আপন জুয়েলার্সে অভিযান পরিচালনা করেছি। সুতরাং এখানে অন্য ব্যবসায়ীদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। আমরা বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দিয়েছি। এতে বলা হয়েছে চোরাচালানের দায়ে এতোদিন যেসব স্বর্ণ আটক করা হয়েছে, সেগুলো যেন নিয়মিতভাবে নিলামে তোলা হয়। স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা যেন সেই নিলাম করা স্বর্ণগুলো সংগ্রহ করতে পারেন।’

আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে আগ থেকেই সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছিল। রেইনট্রির ঘটনার পর কেন সেখানে অভিযান চালানো হলো? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘স্বর্ণ নিয়ে তো আমরা দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছি। আমাদের কাছে প্রায়ই বিভিন্ন অভিযোগ আসে। সে সব অভিযোগ দিয়ে আমরা একটি ডাটাবেজ তৈরি করি। আপনের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা মনে করেছি এ বিষয়ে আরো গভীরভাবে অনুসন্ধান করা প্রয়োজন। যেহেতু সম্প্রতি বনানীর ঘটনাটি ঘটেছে, সেখানে ডার্টি মানির ব্যবহার হয়েছে। আসামির বিরুদ্ধে যেহেতু সরাসরি অভিযোগ করা হয়েছে, যে তার বাবা স্বর্ণ চোরাচালানের সাথে জড়িত। এরকম শক্ত স্টেটমেন্ট কিন্তু আমল যোগ্য। তখন আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য আমলে নেই। সব কিছু যাচাই বাছাইয়ের পর আমরা সিদ্ধান্তে যাই যে এখানে আসলেই কোনও সমস্যা আছে।’

Check Also

sonardesh24.com

বিশ্বকাপে জোড়া গোল!

ক্রীড়া ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪: বিশ্বকাপের মতো কঠিন মঞ্চে একটি গোল করা পাহাড় ডিঙানোর চেয়েও বেশি কিছু। ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com