Wednesday, December 19, 2018

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348
sonardesh24.com

মারিয়ার চিকিৎসায় এগিয়ে আসুন

সোনারদেশ২৪ রিপোর্টঃ

sonardesh24.comনরসিংদী জেলার বানিয়াছল গ্রামের খাদিজা আক্তার মারিয়া। বানিয়াছল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী। মারিয়ার বাবা পেশায় দিনমজুর এবং মা অন্যের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করে। মা বাড়িতে না থাকায় চুলা থেকে ভাতের পাতিল নামাতে আগুনে পুড়ে গিয়েছে শিশুটি। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় মেয়েকে নিয়ে আসা হয়েছিলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

গত ২১শে মার্চ হতে ৪ঠা এপ্রিল পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর খাদিজার পরিবার চিকিৎসা খরচ বহন করতে না পারায় গুরুতর অসুস্থ মেয়েকে নরসিংদীতে তার নিজের গ্রামের বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। মারিয়ার চিকিৎসার জন্য ৮০ হাজার টাকা খরচ করার পর তার দিনমজুর বাবার পক্ষে আর চিকিৎসা খরচ বহন করা সম্ভব হয়নি।

বাড়ি নিয়ে যাওয়ার পর ৫ এপ্রিল মারিয়াকে নিয়ে যাওয়া হয় একজন কবিরাজের কাছে। কবিরাজের পরামর্শেই তার শরীরের পোড়া অংশে ( পিঠ, বুক, হাত, পা) বিভিন্ন রকম ঝাড়ফুঁকের পাশাপাশি তেলপড়া মালিশ করা ও গাছ গাছড়ার রস লাগানো হয়। এতে মারিয়ার অবস্থার আরও অবনতি ঘটতে থাকল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি প্রকাশ হওয়ার পর মারিয়ার বাড়িতে গিয়ে বিস্তারিত জানতে পারে নরসিংদী একদল তরুন স্বেচ্ছাসেবক দল। শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে কেবল ৮ ঘন্টার ব্যবধানে নরসিংদীর স্বেচ্ছাসেবকদের সহযোগিতায় ১০ এপ্রিল মারিয়া ও মারিয়ার মাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয় এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের ডাক্তার জানিয়েছেন, মেয়েটির শরীরের ১৭% পুড়ে গেছে। তেল মালিশ ও অপুষ্টির কারণে সেই ১৭% এর ৭০% জায়গা ইনফেক্টেড হয়ে গেছে। সম্পূর্ণ চিকিৎসার জন্য তাকে কমপক্ষে ৩-৪ মাস হাসপাতালে থাকতে হবে। শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হলে মারিয়ার শরীরে অপারেশন করতে হবে এর জন্য আনুমানিক ৫-৬ লক্ষ টাকার প্রয়োজন হবে। যে খরচ বহন করা একেবারেই অসম্ভব।

মারিয়াকে নিয়মিত চিকিৎসার পাশাপাশি প্রতিদিন ডিম, ফল, ও পুষ্টিকর খাবার দেওয়া হচ্ছে। তবে আমাদের পক্ষে এতদিন এইসব খরচ বহন করা সম্ভব হলেও এখন আর সম্ভব হচ্ছে না। মারিয়ার মা সেচ্ছাসেবকের উদ্দেশ্য করে বলেন,তোমাদের উপর ভরসা করে মেয়েকে ঢাকা নিয়ে এসেছি। আর্থিক টানাপোড়নের কারণে আমরা মেয়ের জন্য কিছুই করতে পারছি না।

মারিয়ার চিকিৎসায় খরচ বহনে সহযোগীতাকারী সেচ্ছাসেবক মেজবাহ্ মুন্না জানায়, স্বেচ্ছাসেবকদের সংগৃহীত ফান্ডের টাকা থেকে গত ১০এপ্রিল থেকে ২৯এপ্রিল পর্যন্ত চিকিৎসা খরচ চালিয়েছি। ৩০এপ্রিল থেকে এখন পর্যন্ত ফেইসবুক ইভেন্ট থেকে সংগৃহীত অনুদান দিয়েই চলছে বর্তমান চিকিৎসা খরচ।

মারিয়া বর্তমান শারীরিক অবস্থাও খুব বেশী ভালো নয়। ৩/৪ দিন যাবৎ প্রচন্ড জ্বর,তাপমাএা ১০৩ ডিগ্রী। শারীরিক যন্ত্রণা সহ্য করতে না পারায় ঘুমের ইঞ্জেকশন দিয়ে রাখা হয় শিশুটিকে। মারিয়ার চিকিৎসা খরচ বহন করতে না পারায় সমাজের বিত্তবান মানুষদের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে তার পরিবার।

Check Also

sonardesh24.com

বৈদেশিক কর্মসংস্থানে সরকারের আরো উদ্যোগ গ্রহণ

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ সরকার স্বল্প ব্যয়ে নিরাপদ অভিবাসন ও সহজ পদ্ধতিতে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে নানা উদ্যোগ ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com