Wednesday, November 14, 2018

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348
sonardesh24.com

রাজশাহীর আলুচাষী, ব্যবসায়ীরা ও কোল্ডস্টোরেজ মালিকরা বেকায়দায়

রাজশাহী ব্যুরো চীফঃ সোনারদেশ২৪:

sonardesh24.comআলু নিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছেন রাজশাহীর আলুচাষি, ব্যবসায়ী ও কোল্ডস্টোরেজ মালিকরা। বর্তমানে কোল্ডস্টোরেজে রৰিত আলু বিক্রি করে উৎপাদন খরচ উঠছে না। এতে করে আগামী মৌসুমে আলুর আবাদ কমে যাবার আশঙ্কা করছেন সংশিৱষ্টরা।

সংশিৱষ্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাজশাহীর কোল্ডস্টোরেজ গুলোতে রক্ষিত প্রতিবস্তা ( ৮৫ কেজি) আলু ৯শ’ থেকে ১ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। অথচ উৎপাদন-সংরক্ষণসহ প্রতিবস্তা আলুতে মোট খরচ হয়েছে চাষিদের ক্ষেত্রে ১২শ’ থেকে ১৩শ’ টাকা এবং ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে ১৫শ’ থেকে ১৬শ’ । অর্থাৎ প্রতিবস্তা আলুতে লোকসান দিতে হচ্ছে চাষিদের ২/৩শ’ এবং ব্যবসায়ীদের ৫/৬শ’ টাকা। এই পরিস্থিতিতে আলু বিক্রি করে খরচের টাকা না ওঠায় চরম বেকায়দায় পড়েছেন আলুচাষি, ব্যবসায়ী ও কোল্ডস্টোরেজ মালিকরা।

এবার উৎপাদন ভালো হওয়ায় মৌসুমের শুর্ব থেকেই আলুর দাম কম থাকায় এবং কৃষকের বাড়িতে প্রচুর আলু থেকে যাওয়ায় কোল্ডস্টোরেজে রৰিত আলু সেভাবে বের হয়নি। রাজশাহীর ৩১টি কোল্ড স্টোরেজের বেশিরভাগেই এখনও সংরক্ষিত আলুর অর্ধেকের বেশি রয়ে গেছে। অথচ অন্যান্য বছরের সাথে তুলনা করলে এই সময় কোল্ড স্টোরেজে রৰিত প্রায় ৫৫ থেকে ৬০ ভাগ আলু বের হয়ে যাবার কথা। এই অবস্থায় স্টোরে রক্ষিত আলু নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন চাষি, ব্যবসায়ী ও কোল্ডস্টোরেজ মালিকরা।

আলুচাষি ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা ব্যাংক, এনজিও, কোল্ডস্টোরেজসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে ঋণ নিয়ে আলু আবাদ করেছিলেন। বর্তমানে আলু বিক্রি করে লাভ তো দূরের কথা, আসল টাকাই উঠছে না। এখন এই ঋণ তারা শোধ করবেন কিভাবে সে চিন্তায় ঘুম হারাম হয়ে গেছে।
পবার রাষ্ট্রপতি পদক প্রাপ্ত আলুচাষি রহিমুদ্দিন সরকার বলেন, বর্তমানে আলু বিক্রি করে তাদের উৎপাদন খরচ উঠছে না। এই পরিস্থিতিতে চাষিদের বাঁচাতে রকার ন্যায্যমূল্যে আলু কিনে ত্রাণ হিসেবে বন্যা কবলিত ও দরিদ্র মানুষদের দিতে পারে। এছাড়া সরকার ঋণ অথবা সুদ মাফ করতে পারে। সরকার আলু বিদেশে রপ্তানীর ব্যবস্থাও করতে পারে। সরকার আলু চাষিদের বাঁচাতে পদক্ষেপ না নিলে আগামী মৌসুমে আলুর আবাদ কমে যাবার আশঙ্কা করছেন তিনি।
কৃষিবিদরাও মনে করছেন বর্তমান পরিস্থিতিতে লোকসানের কারণে অনেকেই আগামীতে আর আলু আবাদ করতে পারবে না। যার ফলে আগামী মৌসুমে আলুর আবাদ কমে যাবার আশঙ্কা করছেন তারাও। রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, গত মৌসুমে রাজশাহীতে আলু চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ৪০ হাজার ৯শ’ হেক্টরে, আবাদ হয়েছিল ৪৩ হাজার ৪৮১ হেক্টরে।

রাজশাহী কোল্ডস্টোরেজ মালিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আলহাজ্ব আবু বাক্কার এ ব্যাপারে বলেন, তারা আলু চাষিদের সুবিধার্থে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে চাষিদের দিয়েছিলেন। আলুর দাম কমে যাওয়ায় তারাও রয়েছেন দুশ্চিন্তায়। চাষিদের লোকসানের কারণে আগামীতে আলুর আবাদ কমে গেলে তাদের স্টোরগুলো খালি পড়ে থাকবে। আলুর সাথে সংশিৱষ্ট এখানকার হাজার হাজার পরিবারকে পথে বসতে হবে। এই অবস্থায় আলুর সাথে সংশিৱষ্টদের সমস্যার কথা বিবেচনা করে সরকারের উচিত জর্বরি ব্যবস্থা নেয়া।

Check Also

sonardesh24.com

আমাদের নির্বাচনে যাওয়ার দরকার নেই: খালেদা জিয়া

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ তফসিল ঘোষণার পরও সরকারের দমননীতির কঠোর সমালোচনা করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com