Wednesday, March 27, 2019

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348

সচেতনতার অভাবেই বাড়ছে কিডনি রোগী

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

sonardesh24.comকিডনী রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। মূলত সচেতনার অভাবেই এ রোগের প্রকোপ দিন দিন বাড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা। শনিবার (৯ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘বিশ্ব কিডনি দিবস-২০১৯’ উপলক্ষে বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘কিডনি এওয়ারনেস মনিটরিং অ্যান্ড প্রিভেনশন সোসাইটি (ক্যাম্পস)’ আয়োজিত এক গোল টেবিল বৈঠকে বক্তরা এ মন্তব্য করেন।

বক্তরা বলেন, বিশ্বে প্রায় ৮০০ মিলিয়ন লোক এই রোগে ভুগছে। বর্তমানে এটি বিশ্বে ১১তম মৃত্যুর প্রধান কারণ হিসেবে বিবেচিত। প্রতিবছর বিশ্বে ১.২ মিলিয়ন লোক কিডনি রোগের কারণে মৃত্যুবরণ করে। এমন পরিস্থিতিতে জনসাধারণকে আরও সচেতন করতে।

বক্তারা আরও বলেন, দুই মিলিয়ন মানুষ কিডনি প্রতিস্থাপন এবং ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে। এর বেশির ভাগই হচ্ছে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে। অন্যদিকে, গরিব দেশগুলো যেমন- প্রায় ১০০টি দেশে কিডনি প্রতিস্থাপন করতে না পেরে কিংবা চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছে রোগী। এ কারণে আমাদের এই রোগের ক্ষেত্রে সচেতনতা বাড়িয়ে এর প্রতিরোধের দিকে বেশি নজর বাড়াতে হবে।

কিডনি রোগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পরিস্থিতির বিবরণ দিতে গিয়ে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে ১৮ মিলিয়ন কিডনি রোগে আক্রান্ত রোগীর মধ্যে ৩৫ থেকে ৪০ হাজার মানুষের কিডনি বিকল। আমাদের দেশে এর কারণ হলো ক্রনিক নেফ্রিটিসে ৪০ শতাংশ, ডায়াবেটিসের কারণে ৩৪ শতাংশ এবং উচ্চ রক্তচাপের কারণে ১৫ শতাংশ।

দেশে বর্তমানে ০.৮০ মিলিয়ন ডায়াবেটিস রোগী এবং ২০ মিলিয়ন উচ্চ রক্তচাপ রোগী রয়েছে। তাছাড়া ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগীর ৪০ থেকে ৮০ শতাংশ আবার ৫ থেকে ১৫ বছর ভোগার পর উচ্চ রক্তচাপের কবলে পড়ে। আর এসব রোগ কিডনির সমস্যা সৃষ্টি করে। এ ধরনের ৪০ শতাংশ রোগী মারা যায়। আবার শুধু উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত রোগীরাও কিডনির রোগে পর্যবসিত হয়।

গোল টেবিল বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ‘ক্যাম্পস’- এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিশিষ্ট কিডনী রোগ বিশেষজ্ঞ ও বিআরবি হাসপাতলের কিডনি বিভাগের প্রধান এবং চীফ কনসালট্যান্ট প্রফেসর ডা. এম এ সামাদ।

ডা. সামাদ বলেন, কিডনি রোগ খুব নীরবে শরীরের ক্ষতি করে। খুব জটিল অবস্থা না হওয়া পর্যন্ত সাধারণত লক্ষণগুলো প্রকাশ চাই না। এছাড়া যখন লক্ষণগুলো প্রকাশ পায় তখন চিকিৎসা করা অনেক ব্যয়বহুল হয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে দুই কোটিরও বেশি লোক কোন না কোনভাবে কিডনি রোগে আক্রান্ত। কিডনি বিকলের চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয় বহুল হওয়ায় এদেশের শতকরা ১০ জন রোগী এ চিকিৎসা চালিয়ে যেতে পারে না। অর্থাভাবে চিকিৎসাহীন থেকে অকালে প্রাণ হারান সিংহভাগ রোগী।

তিনি আরও বলেন,একটু সচেতন হলেই ৫০ থেকে ৬০ ভাগ কিডনি বিকল প্রতিরোধ করা সম্ভব। এজন্য প্রয়োজন প্রাথমিক অবস্থায় কিডনি রোগের উপস্থিতি ও এর কারণ শনাক্ত করে চিকিৎসা করা।

গোলটেবিল বৈঠকে প্যানেল আলোচক হিসেবে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, কিডনি ফাউন্ডেশনের সভাপতি অধ্যাপাক ডা. হারুন অর রশিদ, বাংলাদেশ রেনাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. রফিকুল আলম, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের যুগ্ম-সচিব মো. সাইফুল্ল্যাহিল আজম, সোনালী ব্যাংকের সিইও অ্যান্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ, হলি ফ্যামিলি রেডক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিন্সিপাল মেজর জেনারেল অধ্যাপক ডা. এইচ আর হারুন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Share This:

Check Also

শাহজালাল বিমানবন্দরে অস্ত্র ও গুলিসহ আ.লীগ নেতা গ্রেফতার

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ ঘোষণা ছাড়া অস্ত্র নিয়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবেশ করায় এস এম মুজিবুর ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com