Thursday, October 18, 2018

ঘরে বসে লাখপতি হোন।

অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের ১০০% নিশ্চয়তা দিয়ে ডি.আই.টি-তে বিভিন্ন কোর্স-এ ভর্তি চলিতেছে..!

মোবাইলঃ-01763-023348

সড়ক মেরামতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি, সোনারদেশ২৪ডটকমঃ

সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিতে পাহাড়ি ঠিকাদারের লাইসেন্স ব্যবহার করে খাগড়াছড়ি-মাটিরাঙ্গা আঞ্চলিক সড়ক মেরামতের কাজ করছেন অন্য একজন উপ-ঠিকাদার। তবে লাইসেন্সের বিপরীতে কাজ থেকে মোটা অংকের কমিশন নিচ্ছেন সওজ নিযুক্ত ওই ঠিকাদার। আর কার্য সম্পাদন চুক্তি উপেক্ষা করে মেরামত কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করে সড়কটির মেরামত কাজ করে চলেছেন উপ-ঠিকাদার।

সওজ সূত্রে জানা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে খাগড়াছড়ি-মাটিরাঙ্গা সড়কের জিরোমাইল থেকে সাপমারা পর্যন্ত খণ্ড খণ্ড অংশে মোট ১ হাজার ২শ ৬৩ বর্গমিটার সড়কের মেরামতসহ সিলকোডের কাজটি পায় এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ২১ লাখ ২৫ হাজার টাকার ওই কাজটি কাগজে কলমে এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরার নামে থাকলেও কাজটি করাচ্ছেন রমজান আলী নামে স্থানীয় একজন উপ-ঠিকাদার। গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে কাজটি শুরু করা হয়। আর শেষ করার কথা রয়েছে আগামী ১১ মার্চের মধ্যে।

সোমবার দুপুরে সংস্কারাধীন ওই সড়কে গিয়ে দেখা যায়, কাজের চুক্তি অনুযায়ী ১নং পাথর ব্যবহারের কথা থাকলেও তাতে ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের পাথর এবং অন্যান্য নিমার্ণ সামগ্রী। এছাড়া সড়কের বিভিন্ন স্থানে সৃষ্ট গর্ত ভরাটে সওজ প্রদত্ত শর্ত উপেক্ষা করে দেয়া হচ্ছে কংক্রিট (ইটের ভাঙা টুকরো)। সিলকোডে ব্যবহৃত পাথরের সঙ্গে ব্যবহার করা হচ্ছে বালু মিশ্রিত পাথর। নিম্নমানের এসব নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের ফলে সামনের বর্ষা মৌসুমে আবারও আগের মতো গর্ত সৃষ্টি হবে বলে মনে করছেন এই সড়কে চলাচলকারী চালক ও যাত্রী সাধারণ।

এদিকে, এ ব্যাপারে কথা বলতে সওজ নিযুক্ত ঠিকাদার এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন ও ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েও কোনো সাড়া মেলেনি।

আর এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরার লাইসেন্সে কাজ করছেন বলে স্বীকার করে কাজের উপ-ঠিকাদার রমজান আলী বলেন, ‘কিছু লাভের আশায় পাহাড়ি ঠিকাদারের লাইসেন্সে কাজ করছি। কারণ পাহাড়ি ঠিকাদারদের লাইসেন্সে কাজ করলে আয়কর দিতে হয়না।’ কাজের নিম্নমান প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘কাজ শিডিউলের চেয়েও ভালো হচ্ছে।’

তবে সওজ খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মাসুদ জানান, ‘কাজে নিম্নমানের পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে এবং এ বিষয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীকে অবগত করা হয়েছে।’

নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মোসলেহ্ উদ্দীন চৌধুরী জানান, ‘সংস্কার কাজে কোনো প্রকার অনিয়ম প্রশ্রয় দেয়া হবে না। যদি নিম্নমানের সামগ্রী সাইটে আনা হয় তাহলে সেগুলো ফেরত পাঠানো হবে।’

Check Also

sonardesh24.com

মুক্তি পেলেন মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ শাহবাগ থানার নাশকতার মামলায় ৩৮ দিন কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন বিএনপির সহ-জলবায়ূ ...

সম্পাদকঃ জিয়া্উল হক, নির্বাহী সম্পাদকঃ নওশাদ আহমেদঠিকানাঃ কমিউনিটি হাসপাতাল (৫ম তলা) মুজিব সড়ক, সিরাজগঞ্জ।
ফোনঃ ০১৬৮৩-৫৭৭৯৪৩, ০১৭১৬-০৭৬৪৪৪ ইমেইলঃ sonardesh24.corr@gmail.com, sonardesh24@yahoo.com